1. news@dailydeshnews.com : Admin2021News :
  2. : deleted-txS0YVEn :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৬:১১ পূর্বাহ্ন

বিএনপি কি পাকিস্তানে থাকে যে নির্বাচনে ডেকে আনতে হবে: আইনমন্ত্রী

দৈনিক দেশ নিউজ ডটকম ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন, ২০২২
  • ২৭ পঠিত

বিএনপি কি পাকিস্তানে থাকে যে নির্বাচনে ডেকে আনতে হবে? আজ বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দলটির দুজন সংসদ সদস্যের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এ প্রশ্ন তুলেছেন আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল হক।

তিনি বলেন, বিএনপি ও বেশ কয়েকটি দল দাবি তুলেছিলেন যে, যতক্ষণ না নির্বাচন কমিশন (ইসি) আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে না, ততক্ষণ পর্যন্ত নির্বাচনে যাবেন না তারা। এখন তো নির্বাচন কমিশন (ইসি) আইন হয়েছে। এখন তারা বলা শুরু করেছেন, এত দ্রুত আইন প্রণয়ন হলো কেন?

বিএনপির দুজন সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ এবং রুমিন ফারহানা আজ বৃহস্পতিবার সংসদের সরকারের নির্বাচনকালীন নীতি নিয়ে তীব্র সমালোচনা করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি মেনে নেয়ার আহ্বান জানান।

সরকারের কাছে এমন আবদারের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সংসদে প্রশ্ন তোলেন, বিএনপি কি পাকিস্তানে থাকে যে তাদের ডেকে আনতে হবে? আমি যতদূর জানি তারা এদেশেরই একটি রাজনৈতিক দল, এদেশেই থাকেন তারা। তাহলে আমরা তাদের ডাকতে যাবো কেন?

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, এখন তাদের দাবি এই যে, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি মেনে নিলেই নির্বাচনে আসবেন তারা। তারা বারবার বলে চলেছেন তাদরকে নির্বাচনে আনতে হবে। তারা কি পাকিস্তানে থাকেন যে তাদের সেখান থেকে ডেকে আনতে হবে, তারা তো বাংলাদেশেই থাকেন, তারা চাইলেই নির্বাচনে আসতে পারেন, নির্বাচন করতেও পারেন।

এর আগে জাতীয় সংসদে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় খাতে বরাদ্দের ওপর ছাটাই প্রস্তাবের বক্তব্যে বিএনপির চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ বলেন, স্পষ্ট করে আমরা বলতে চাই, এবারের নির্বাচনে বিএনপি না থাকলে দেশে বা আন্তর্জাতিকভাবে সেটা গ্রহণযোগ্য হবে না। এ সময় এ সরকারের আমলে নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব হবে না মন্তব্য করে তিনি তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি জানান।

২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনের পর বিএনপি থেকে মনোনীত ৫০ নং সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, যে ইসি কুমিল্লার একজন সাংসদকে এলাকা থেকে বের করতে পারেনি, সেই ইসি কিভাবে ৩০০ জন ‘সিটিং এমপিকে’ রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন করবে।

এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনকে সরকারের পক্ষে কাজ করার অভিযোগ করেন তিনি। বিএনপির এই নেত্রী সমালোচনা করেন, সাবেক একজন সিইসি বলেছেন, ইভিএমে কিছুটা ত্রুটি ছিল। তাহলে তিনি ত্রুটিপূর্ণ ইভিএমে কেন ভোটগ্রহণ করলেন।

রুমিন ফারহানার এমন প্রশ্নের জবাবে এ সময় আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল হক বলেন, বিএনপির দুজন সংসদ সদস্য এখানে উপস্থিত আছেন। একজন তো বলেই বসলেন, নির্বাচিত হয়ে আসার পরে নির্বাচন হয় নাই। সংসদে তিনি যে আসনে বসে আছেন। তারপরেও বলে চলেছেন, নির্বাচন হয়নি। তাহলে স্বাভাবিকভাবে জনগণের মনে প্রশ্ন উঠতে পারে- কীভাবে তিনি সংসদে গেলেন? এর জবাব তিনিই দেবেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, গতকাল বুধবার রুমিন ফারহানা মন্তব্য করেছেন, আমরা নাকি তাদের নেত্রী খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে সংসদে সময় নষ্ট করি। আমি বলবো আমরা এখানে অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করি। কেননা পদ্মা সেতু আমাদের জন্য একটি বড় অর্জন। মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীনতা ও বিজয় লাভের পর যদি দেশের বড় কোনো অর্জন থাকে তাহলে সেটা পদ্মা সেতু। আমরা এই বিষয়ে আলোচনা করবো নাকি তার পোশাক-আশাক নিয়ে আলোচনা করবো?

এ সময় সংসদ সদস্যরা একযোগে হেসে ওঠেন।

পরবর্তীতে সংসদে আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ করে বিএনপি নেত্রী রুমিন ফারহানা বলেন, যেখানে সংসদে প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, বিরোধী দলের নেতা সবাই নারী, সেখানে এমন অশালীন ভাষা কিভাবে আইনমন্ত্রী বলতে পারেন, আমি ভাবতে পারি না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর
© All Rights Reserved © DAILY DESH NEWS.COM 2020-2022
Theme Customized BY Sky Host BD